হাটহাজারীর পৌরসভার দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে- সাকিলা ফারজানা

মানুষ নানা ভাবে হতভাগ্য হতে পারে; তবে যার দেশ ব’লে কোনো ভূভাগ নেই সে সবচেয়ে হতভাগ্য। উদ্বাস্তু, পরভূমে ভ্রাম্যমাণ, শেকড়হীন মানুষের মুখে বিষাদ, বুকে শূন্যতা। কোনো সাফল্যই তার কাছে সাফল্য বলে মনে হয় না। প্রতিটি মানুষের চাই নিজের দেশ; যে-দেশের মাটির অনেক গভীর পর্যন্ত ছড়ানো তার শেকড়। দেশ তার প্রতিটি সন্তানের কাছে প্রত্যাশা করে অনেক কিছু; আর সন্তানেরও দেশের কাছে প্রাপ্য অনেক। দেশের কাছে সন্তানের প্রাপ্য খাদ্য, বাসস্থান, শিক্ষা, জীবিকা, নাগরিক সুযোগসুবিধা, নিরাপত্তা, আরো অনেক কিছু কথা গুলো বলছেন ব্যরিষ্টার সাকিলা ফারজানা।

চট্টগ্রাম জেলা সদর থেকে মাত্র ২০ কিলোমিটার দূরে হাটহাজারি উপজেলার মধ্যভাগে অবস্থিত হাটহাজারি পৌরসভার প্রায় ৭৫ হাজার অধিবাসী সকল ধরনের নাগরিক সুযোগসুবিধা হতে ২০১২ এর ১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠার পর হতে প্রায় বণ্চিত হয়ে আসছে। সাবেক ৭নং হাটহাজারি ইউনিয়নের সবকটি গ্রাম এই পৌরসভার প্রশাসনিক এলাকায় অবস্থিত। প্রতিষ্ঠার পর হতে এ পর্যন্ত পৌরসভাটি সরকার নিযুক্ত প্রশাসকের মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে। বর্তমানে হাটহাজারী উপজেলার টিএনও যৌথভাবে এখানে প্রশাসক হিসেবে ও নিযুক্ত আছেন। পৌরসভার ৯’টি ওয়ার্ডেও সরকার নিযুক্ত কাউন্সিলররা দায়িত্ব পালন করছে। জনগণের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত না হওয়ায় এদের কারো পৌরবাসীর প্রতি দায়বদ্ধতা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। এই পৌরসভার হোল্ডিং সংখ্যা ৪৬৭৬। পৌরসভাটি ‘ক’ শ্রেণীর অন্তর্ভূক্ত হলেও এখনো নূন্যতম সুযোগসুবিধাও নিশ্চিত হয়নি; অথচ পৌরকর আদায়, জন্মনিবন্ধন এবং অন্যান্য ব্যাপারে পৌরসভায় নিযুক্ত কর্মকর্তা, কর্মচারীদের মাধ্যমে প্রশাসক অতিরিক্ত এবং অনৈতিক সুবিধা আদায় করেই যাচ্ছে। হাটহাজারী পৌরসভার অসচ্ছল, নিরুপায় নাগরিকদের এহেন আর্থিক অত্যাচার ইতিমধ্যে অসহনীয় হয়ে উঠেছে। পৌরসভা কর্তৃক পৌরকর নির্ধারণ হয় সুযোগসুবিধে দেয়ার বিনিময়ে। কিন্তু এক্ষেত্রে সুযোগসুবিধে নিশ্চিত না করেই পৌরকর বা হোল্ডিং ট্যাক্স নেয়া হচ্ছে। এমনকি কোনো কোনো ক্ষেত্রে ২০২০ সালের অগ্রীম কর পর্যন্ত নিয়ে নেয়া হয়েছে। পৌরসভার প্রশাসক এবং কর্মচারীদের প্রতিনিয়ত দুর্নীতির শিকার হয়ে পৌর নাগরিক হওয়া তাদের কাছে অত্যাচার হিসেবেই প্রতিভাত হচ্ছে।

আমি হাটহাজারি পৌরসভার সকল অনিয়ম, দুর্নীতির বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। দুর্নীতিবাজ প্রশাসক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের শাস্তির দাবী জানাচ্ছি। অবিলম্বে প্রিয় নাগরিকদের সুযোগসুবিধা নিশ্চিতের লক্ষ্যে, সরাসরি ভোটের ব্যবস্থা করে হাটহাজারি পৌরসভার সুযোগসুবিধা স্থায়ীত্ব নিশ্চিত করার দাবী রাখছি।

প্রেস রিলিজ।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *