সিডনিতে খিচুড়ি, গান আর আড্ডায় বাংলাদেশী কমিউনিটির বৃষ্টিভেজা মিলনমেলা; ফার্মহাউজ গেটটুগেদার।

আড্ডায় বাংলাদেশিদের জুড়ি মেলা ভার, সাথে যদি হয় গান আর খাওয়া দাওয়া তাহলে তো আর কথায় নেই। তেমনি চমৎকার একটি আনন্দ আয়োজন উদযাপন হয়ে গেল ইএসআই গ্লোবাল, স্বাধীন কন্ঠ আর স্টার কিডস এর সৌজন্যে। আয়োজন ছিল পূর্বনির্ধারিত, কিন্ত বাধসাদলো বৃষ্টি। কিন্তু আড্ডা প্রিয় বাঙ্গালীকে ঠেকায় কার সাধ্য। আর অনুষঙ্গ যখন গান আর খিচুড়ি।

আমরা বাঙ্গালীরা জাতি হিসেবে বড়ই অনুভূতিপ্রবণ – দিনশেষে ঘরের কোণে ছয় ফিট লম্বা, তিন ফিট চওড়া বিছানাটাকেই আমরা স্বর্গ ভাবি।ছোট একটা অ্যাপ্রিসিয়েশন অনেক কিছু করার ক্ষমতা রাখে।একটি সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী হয় কারণ নিয়মিত,
কিছু সাহসী মানুষ এটির জন্য লড়াই করে।
২৭ মার্চ দুপুরে সিডনির কেম্পস ক্রিকে আয়োজন করা হয় এক বিশেষ গেট টুগেদার এর৷ ভোজন ও শিশুদের জন্য বিভিন্ন রাইড নিয়ে এই আয়োজন করে যৌথভাবে ইএসআই গ্লোবাল,স্বাধীন কন্ঠ ও স্টার কিডস৷ এই কোম্পানিগুলোর যৌথ সম্পত্তি ও বিনোদোনকেন্দ্র, সিডনির কেম্পস ক্রিকে এই আয়োজনের উদ্দেশ্য ছিলো পারস্পরিক পরিচিতি ও করোনা পরবর্তী মিলনমেলা৷ যদিও প্রচন্ড বৃষ্টির দুরন্তপনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ৷ উপস্থিত ছিলেন সিডনির বেশ কয়েকজন সাংবাদিক এবং অসংখ্য বন্ধু সম্যমনা মানুষ। উপস্থিত ছিলেন রাজনীতিবিদ শাহজাদা আলম,মোহাম্মাদ আলী শিকদার, মাকসুদুর রহমান চৌধুরী, সাংবাদিক আবু তারিক, টেলিঅস এর কর্ণধার জাহাঙ্গীর আলাম, কাউন্সিলর মাসুদ চৌধুরী, কাজী সুলতানা সিমি, সাংবাদিক আবদুল মতিন, আবু আবদুল্লাহ,আকিদুল ইসলাম,মিজানুর রহমান সুমন,ভাইটাল আহমেদ প্রমুখ৷

আয়োজকদের মধ্যে ছিলেন স্টার কিডসের খায়রুল ইসলাম,ইএসআই গ্লোবালের কর্ণধার কাজী এ কাদের আরমান,স্বাধীন কন্ঠের কর্ণধার কাজী এন সাফা আলমগীর ,স্বাধীন কন্ঠের সম্পাদক ভাইটাল আহমেদ প্রমুখ৷ শিশুদের নিয়ে একটি ইভেন্টের পুরস্কার দেয়ার আয়োজন করে স্বাধীন কন্ঠ৷ শিশুদের উৎসাহিত করতে স্বাধীন কন্ঠের আয়োজনে অংশ নেয়া সবাইকে পুরস্কৃত করে স্বাধীন কন্ঠ ও ইএসাই গ্লোবাল৷ অনুষ্ঠানের শেষের দিকে গান পরিবেশন করেন আতিক হেলাল ও আফরিনা মিতা৷যদিও ন্যায্য আবহাওয়া এবং বাস্তব বন্ধুদের যোগাযোগ আপনার একান্ত ব্যাক্তিগত বিষাদ আর যন্ত্রণাগুলো এবং আপনার পাশে থাকা কাছের মানুষগুলোর প্রতি অপরিসীম ভালোবাসা আর নিঃশর্ত কৃতজ্ঞতাই যেন শুধু আপনার সঙ্গী হয়।একজন মানুষের পুরো জীবনে পরিবার,আত্বীয়,-স্বজন,বন্ধু-বান্ধব সহ সব মিলিয়ে গড়ে পাঁচ থেকে দশ হাজার মানুষের সাথে তার পরিচয়(কম বেশিও হতে পারে মানুষ ভেদে)।
সেই সকল মানুষকে ছাপিয়ে কেউ একজন যদি আপনাকে দেখতে পারে,আপনার সঙ্গ পছন্দ করে,তবে তার কাছে নিশ্চয়ই আপনি স্পেশাল।
সেই মানুষটাকে কিছুটা সময় দিন,কিছুটা সঙ্গ দিন।হয়ত আপনার ছোট একটা পরামর্শ তার জীবন চলার নীতি হয়ে দাড়াবে।
মানুষের সাথে সু-সম্পর্ক বজায় রাখুন,মানুষকে মূল্যায়ন করতে শিখুন,সে যেই হোক।বলাতো যায়না,এর সূত্র ধরে হয়ত খোদাও আপনাকে মূল্যায়ন করল কোন একদিন। পৃথিবীর কোন জিনিষ যদি মানুষের ভাগ্য বদলাতে পারে তা হল -দোয়া,প্রচুর দোয়ার প্রয়োজন জীবনে।
দোয়াতে স্বরণ রাখবেন।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published.