মুজিবনগর সরকারের সাবেক রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ নূরুল কাদিরকে ‘স্বাধীনতা সম্মাননা’ দিবে সিডনি প্রেস এ্যান্ড মিডিয়া কাউন্সিল

নাইম আবদুল্লাহ: স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীন্তে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের (মুজিবনগর) সাবেক রাষ্ট্রদূত বীর মুক্তিযাদ্ধা এ্যাডভোকেট মুহাম্মদ নূরুল কাদিরকে ‘স্বাধীনতা সম্মাননা’ দিবে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসি বাংলাদেশী লেখক ও সাংবাদিকদের বৃহত্তম সংগঠান সিডনি প্রেস এ্যান্ড মিডিয়া কাউন্সিল। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত কাউন্সিলের কার্যনির্বাহী পরিষদের এক সভায় এই সিদ্বান্ত গৃহীত হয়। কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মতিন জানান, আগামী ২৫ মার্চ (বৃহস্পতিবার) বিকাল ৪ টায় ৩৭৩ দিলু রোড মগবাজার ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে এই সম্মাননা প্রদান করা হবে। 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের (মুজিবনগর) রাষ্ট্রদূত থাকাকালীন সময়ে সমগ্র বিশ্ব ঘুরে ঘুরে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেওয়ার পক্ষে সমর্থন যুগিয়েছিলেন মুহাম্মদ নূরুল কাদির। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সম্মান জানিয়ে অনেক মেডেল দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। অস্ট্রেলিয়া থেকে সর্বপ্রথম স্বীকৃতি দিয়েছিল স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে। 

সত্তরের বন্যায় রেডক্রসের মাধ্যমে ভোলার বিভিন্ন জায়গায় ৪ মাস যাবত খাবার ও ত্রাণ সামগ্রি পৌঁছিয়ে দেওয়ার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন নূরুল কাদির। বন্যায় বাড়ি-ঘর ডুবে যাওয়া শত শত মানুষ গাছের মাথায় আশ্রয় নিয়েছিলেন,সেই গাছের মাথাও খাবার পৌঁছে দিয়েছিলেন তিনি। ত্রাণ দেওয়ার পর ৪০০ পৃষ্ঠার একটি রিপোর্ট তৈরী করেছিলেন নূরুল কাদির। সেই রিপোর্ট ইংরেজীতে অনুবাদ করে রেডক্রস আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছিল।

নিজের সম্পদের অর্ধেক বিক্রি করে ‘‘দুশো ছেষট্টি দিনে স্বাধীনতা’ তথ্যবহুল একটি বই বের করেছিলেন তিনি। দেশের জন্য তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। বর্তমানে মুহাম্মদ নূরুল কাদিরের বয়স আশি বছর। বাংলাদেশের ‘স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী’ পালিত হচ্ছে কিন্তু আজো তাঁকে সম্মাননা জানানো হয়নি এবং ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ দেওয়া হয়নি। দেশের প্রতি এই মহান ব্যক্তির অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ‘স্বাধীনতা সম্মাননা’ দেওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছে সিডনি প্রেস এ্যান্ড মিডিয়া কাউন্সিল। 

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *