ব্রিটিশ রাজপরিবারের বিরুদ্ধে একি বললেন রাজবধূ মেগান!

বিখ্যাত মার্কিন টিভি হোস্ট অপরাহ উইনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাজ পরিবারের খেতাব ছেড়ে দেওয়া মেগান মের্কেল অভিযোগ করেন, তার ছেলে অর্চি গর্ভে থাকতে গায়ের রং নিয়ে শঙ্কায় ছিল রাজপরিবার। তিনি ব্রিটিশ রাজপরিবারের বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ তুলেছেন। তার সঙ্গে অন্তঃসত্ত্বাকালীন দিনগুলোতে কী কী দুর্ব্যবহার করা হয়েছে, সেসবের বর্ণনাও দেন তিনি। ওই সময় আত্মহত্যার কথাও ভেবেছিলেন মেগান।

উইনফ্রে ইতিমধ্যে জানিয়েছেন, মেগান বর্ণবাদের যে অভিযোগ তুলেছেন সেটি রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে উদ্দেশ্য করে নয়।

মেগান ওই সাক্ষাৎকারে বলেন, সন্তানের গায়ের রং নিয়ে উদ্বেগের কথা রাজ পরিবারের বিশেষ এক সদস্য তাকে জানিয়েছিলেন। কিন্তু তার নাম খোলসা করেননি তিনি।
অপরাহ উইনফ্রের উপস্থাপনায় রোববার মার্কিন টেলিভিশন সিবিএসের টকশোতে হাজির হয়েছিলেন প্রিন্স হ্যারি ও মেগান। সেখানেই ব্রিটিশ রাজপরিবারের বিরেুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তোলেন তিনি।

মেগানের মা একজন কৃষ্ণাঙ্গ ও বাবা শ্বেতাঙ্গ। টকশোতে তিনি বলেন, ২০১৮ সালে ব্রিটিশ রাজপরিবারে বিয়ে করার আগ পর্যন্ত তিনি অতি সাধারণ জীবন যাপনে অভ্যস্ত ছিলেন। কিন্তু রাজপরিবারের সাথে মানিয়ে নিতে সহযোগিতা চেয়েও আদৌ না পাওয়ার পরে তার মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা দেখা দেয় এবং নিজের ক্ষতি করার চিন্তাও তিনি করেছিলেন।

মেগান বলেন, ‘ওরা ওকে প্রিন্স বা প্রিন্সেস বানাতে চায়নি, ওর লিঙ্গ কী হবে তা না জেনেই। এটা রীতিবিরুদ্ধ হতো। আর এ কারণেই পরবর্তী সময় ও নিরাপত্তাও পেত না।’
তিনি বলেন, ‘অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন মাসগুলোও আমার একইরকম ছিল, বারবার ওই কথাগুলোর মধ্যেই আমরা ছিলাম, ‘তোমাকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে না, এমনকি কোনো উপাধিও না। আর ও যখন জন্মাবে তখন ওর গায়ের রং কেমন হবে তা নিয়ে উদ্বেগ আর কথাবার্তাও চলছিল।’

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *