বিক্রি করা সন্তানকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল পুলিশ

ক্লিনিকের বিল পরিশোধ করতে বিক্রি করে দেয়া সদ্যোজাত সন্তানকে বাবা-মা’র কাছে ফেরত দিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার গাজীপুরের কোনাবাড়ি সেন্ট্রাল হাসপাতালে ওই শিশুটিকে মাত্র ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করতে বাধ্য হয় তার বাবা-মা। ঘটনাটি জানাজানি হলে পুলিশের হস্তক্ষেপে উদ্ধার হয় শিশুটি। কঠিন বাস্তবতা পেরিয়ে মায়ের কোলে ফেরে সন্তান।

জন্মের পর পৃথিবীতে শিশুর সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য স্থান মায়ের কোল। তবে অর্থের অভাবে সেই নিরাপদ ভরসাস্থল হারাতে বসেছিল ১২ দিন বয়সী এই শিশু। গত ২২ এপ্রিল গাজীপুরের কোনাবাড়ি সেন্ট্রাল হাসপাতালে পৃথিবীর আলো দেখে সে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অস্ত্রোপচারের জন্য ৪৬ হাজার টাকা দাবি করলে অথৈ সাগরে পড়েন শরিফ-কেয়া দম্পতি।
করোনা পরিস্থিতির জেরে প্রায় দুমাস ধরে বেকার পোশাক শ্রমিক শরিফ, উপায়ান্তর না দেখে সন্তানকে বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন। সন্তানের বিনিময়ে পাওয়া ২৫ হাজার টাকা দিয়ে হাসপাতালের বিল পরিশোধ করে সন্তানকে ছাড়াই বাড়ি ফেরেন অসহায় এ দম্পতি।
এ ঘটনার কথা স্বীকার করলেও সন্তান বিক্রির কথা কিছু জানে না বলে দাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। এদিকে, সন্তান বিক্রির খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে খবর পায় পুলিশও। পরে গাজীপুরের পুলিশ কমিশনারের হস্তক্ষেপে উদ্ধার হয় শিশুটি।
গাজীপুর কোনাবাড়ি সেন্ট্রাল মেডিক্যাল হাসপাতালের এমডি মোনায়েম খান জানান, সন্তান বিক্রি করার কথা আমাদের জানা নেই। তবে হাসপাতালের বিল পরিশোধ করেছে ওই দম্পতি। তবে অর্থের উৎস আমি জানি না।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আনোয়ার হোসেন জানান, সন্তান বিক্রির বিষয়টি আমরা জানার সাথে সাথে আমরা পদক্ষেপ নেই। শিশুটিকে উদ্ধার করে তার মা-বাবার কাছে তুলে দেই।
সন্তানকে ছেড়ে থাকার দু:স্বপ্ন শেষ হয়েছে শরিফ-কেয়া দম্পতির। প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞ দম্পতির চাওয়া, সন্তানকে সুন্দর ভবিষ্যত উপহার দেয়া।

Source: independent24

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *