বিএনপির ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে ক্ষমতাসীনদের হামলার অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, সাতক্ষীরায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মধ্যে দলীয় নেতা-কর্মীদের ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে ক্ষমতাসীনেরা হামলা চালিয়েছে।

আজ রোববার এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এই অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, করোনাভাইরাসের দুর্যোগকালে দেশে যখন গরিব ও ছিন্নমূল মানুষ দুমুঠো ভাতের জন্য হাহাকার করছে, তখন ক্ষুধারত ও নিরন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনগুলো ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখায় সেই মানবিক কাজটিকে কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না সরকার। তারা দলীয় লোকজনদের দিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হিংস্রতার থাবা বিস্তার করছে, নেতা–কর্মীদের ওপর সশস্ত্র হামলা চালিয়ে তাঁদের গুরুতর আহত করছে।

বিৃবতিতে উল্লেখ করা হয়, আজ সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সৈয়দ ইফতেখার আলীম, যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান, সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাসকীন আহমেদ চিশতী, সদস্য আলেম এলাহী, মহিলা দলের নেত্রী নুরজাহান পারভীনের নেতৃত্বে শ্যামনগর উপজেলায় ত্রাণ বিতরণকালে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সাংসদের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা হামলা চালান। এই হামলায় ছাত্রদলের রাসেল আহমেদ, কৃষক দলের মাসুদ আহমেদ, আনিস আলম, সালাম মিয়া, আজিজুল হক, দুলু খন্দকারসহ ১২ জন আহত হয়েছেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘নিরন্ন মানুষকে বিএনপি নেতা–কর্মীদের দ্বারা সাহায্যের মহৎ উদ্যোগকে সন্ত্রাসী কায়দায় বাধাগ্রস্ত করতেই আওয়ামী সন্ত্রাসীরা প্রতিনিয়ত নেতা–কর্মীদের ওপর হামলা চালাচ্ছে। এটি নিঃসন্দেহে চলমান দুঃশাসনেরই ভয়াবহ নজির। ক্ষমতাসীন দল কর্তৃক এ ধরনের পৈশাচিক হামলা ও রক্তাক্ত সন্ত্রাসী ঘটনার কারণেই করোনা মহামারির এই সংকটময় সময়ে দেশ আরও গভীর নৈরাজ্যের মধ্যে নিপতিত হয়েছে। এই করোনা মহামারির মধ্যে গরিব ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণের কর্মসূচিতে সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের এই হামলা ঘটনা অশুভ ইঙ্গিতের ইশারা হচ্ছে বলে আমরা মনে করি।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ১৭ জুন নারায়ণগঞ্জের মহিলা দলের নেত্রী আয়শা দীনার নেতৃত্বে ত্রাণ বিতরণকালেও ক্ষমতাসীনেরা হামলা চালায়।

Tags:

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *