পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করবে ভারত

বাংলাদেশের বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রায় সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও বিদেশে পাচারের অভিযোগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার পি কে হালদারকে দুই দেশের বন্দী প্রত্যর্পণ চুক্তির আওতায় বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ভারতের সংবাদপত্র টেলিগ্রাফের এক প্রতিবেদনে অর্থ গোয়েন্দা সংস্থা ইডির এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়েছে।একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গত শনিবার কলকাতায় গ্রেপ্তার পি কে হালদারকে আদালতে উপস্থাপন করা হবে।

সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাঁকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ-ভারত বন্দী প্রত্যর্পণ চুক্তি করে। এ চুক্তির আওতায় ২০১৫ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশের জেলে বন্দী আসামের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন উলফার নেতা অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হয়।দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা অর্থ পাচার মামলার পলাতক আসামি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদার (পি কে হালদার) শনিবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতায় গ্রেপ্তার হয়েছেন।এর আগে শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা ও চব্বিশ পরগনার অন্তত ৯টি স্থানে তল্লাশি চালায় ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয়ের তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট (ইডি)। পরে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার পোলেরহাটের দুটি বাড়িসহ বিভিন্ন জায়গায় পি কে হালদারের ব্যক্তিগত আইনজীবী সুকুমার মৃধার অবৈধ সম্পত্তির খোঁজে অভিযান শুরু করে ভারতের এই সংস্থা। বাংলাদেশ থেকে অবৈধ টাকা পাচার করে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের একাধিক জায়গায় পি কে হালদার সম্পত্তি কিনেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে পি কে হালদারের বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারি করে ইন্টারপোল।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *