নিম্নচাপটি ঘুর্নিঝড়ে রুপান্ত‌রিত হচ্ছে, ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি।

দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় থাকা নিম্নচাপটি ঘনীভূত হয়ে বর্তমানে রূপ নিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’তে। রোববার আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যে বলা হয়, সেটি একই এলাকায় অবস্থান করছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, ঘুর্ণিঝড়টি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর–পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। এ জন্য সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর সতর্কসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। রোববার সকাল ৬টার দিকে নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড় অশনিতে পরিণত হয়েছে বলেও জানানো হয়।

ঘূর্ণিঝড়টি যদি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ উপকূলের দিকে আসে, তা হলে সেটি মাঝারি মাত্রার ঝড়ে পরিণত হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত সেটি কোথায় গিয়ে আঘাত করবে, তা আরও দুদিন পর জানা যাবে।

নাসা ও জয়েন টাইফুন ওয়ার্নিং সেন্টারের পূর্বাভাসে জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের অন্ধ্র ও ঊডিষ্যা উপকূলে আঘাত করলে তা খুবই দুর্বল হয়ে পড়বে। কারণ ভারতের ওই দুই উপকূলে সমুদ্রপৃষ্ঠের তাপমাত্রা এখন সবচেয়ে কম। সমুদ্রের যেই অংশ দিয়ে ঘূর্ণিঝড় যায়, সেখানে তাপমাত্রা কম থাকলে ঝড়ের গতিও কমে যায়। তাপমাত্রা বেশি থাকলে ঝড় আরও শক্তি অর্জন করে।

কানাডার সাসকাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘূর্ণিঝড় গবেষক মোস্তফা কামাল গণমাধ্যমকে বলেন, ঘূর্ণিঝড়টি যদি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ উপকূলের দিকে আসে, তা হলে সেটি মাঝারি মাত্রার ঝড়ে পরিণত হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত সেটি কোথায় গিয়ে আঘাত করবে, সেটি আরও দুদিন পর বোঝা যাবে।

Tags:

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published.