তিন হাজার পরিবহন শ্রমিকের পাশে ট্রাফিক পুলিশ


২৫ মার্চের পর থেকে পরিবহন চলাচল বন্ধ। এরই মধ্যে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা। তারা ভিক্ষুক নন, আত্মসম্মানবোধের কারণে কারো কাছে হাত পাতেন না, আবার সংসারও চালাতে পারছেন না। পরিবহন শ্রমিকদের এমন দুদর্শার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর ট্রাফিক পুলিশ তিন হাজার শ্রমিককে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করেছে।

এই কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে রবিবার বেলা ১১টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান। তাঁর সঙ্গে ছিলেন চট্টগ্রামের শিল্পপ্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপর কর্মকর্তা মো. আকিজ উদ্দিন। এস আলম গ্রুপের সৌজন্যে এই সহায়তা কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। প্রতিটি প্যাকেটে পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি পেঁয়াজ, দুই কেজি আলু, লবণ, তেল ও সাবানসহ প্রায় ১১ কেজি ভোগ্যপণ্য সামগ্রী থাকছে। 

শ্রমিকদের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করতে এসে পুলিশ কশিমনার মো. মাহাবুবর রহমান বলেন, সড়কে গাড়ি চলছে না। ফলে আয়বঞ্চিত হচ্ছেন শ্রমিকরা। এতে তাঁদের পরিবার দুর্ভোগে পড়েছে। মানবিক দিন বিবেচনায় নিয়ে পুলিশ শ্রমিকদের পাশে দাঁড়িয়েছে। ভবিষ্যতে মানবিক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। একইভাবে শ্রমিকদের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন এস আলম গ্রুপের কর্মকর্তা মো. আকিজ উদ্দিন। 

খাদ্যসামগ্রী বিতরণপদ্ধতি বিষয়ে ট্রাফিক বিভাগের উপকমিশনার (উত্তর) মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ এবং উপকমিশনার (বন্দর) মো. তারেক আহম্মেদ জানান, ট্রাফিক বিভাগ এর মধ্যেই পরিবহন সংগঠনগুলোর মাধ্যমে মোবাইল ফোন নম্বরসহ তালিকা তৈরি করেছেন। সেই তালিকা ধরে রাতে ত্রাণ বিতরণ করা হবে। লোকসমাগম করে সহায়তা দেওয়া হবে না। অনুষ্ঠানস্থলে মাত্র ১০ জন শ্রমিককে আনা হয়েছে। অন্যদের বাসায় সহায়তা পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হবে। 

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) এস এম মোস্তাক আহমেদ খান, অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) শ্যামল কুমার নাথ, উপকমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, উপকমিশনার (ট্রাফিক-বন্দর) মো. তারেক আহম্মেদ, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন (চট্টগ্রাম অঞ্চল) সভাপতি মো. মুসা, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন (চট্টগ্রাম অঞ্চল) সাধারণ সম্পাদক অলি আহমদ, এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যানের পিএস টু মো. আকিজ উদ্দিন ও আশীষ নাথ প্রমুখ।

সূএ:- কালের কন্ঠ

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *