তরমুজ লাল এবং মিষ্টি কি না, কী করে বুঝবেন?

তরমুজের কাঁচা ডাঁটা থাকলে বোঝায় এটি পাকেনি। পাকার আগেই তরমুজটি বাজারে আনা হয়েছে। এ ধরনের তরমুজ কিনবেন না। এমন তরমুজ কিনুন, যার ডাঁটা শুকিয়ে গিয়েছে। সেটি মিষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

খুব বড় বা খুব ছোট তরমুজ না কিনে মাঝারি আকারের তরমুজ কেনাই ভালো। সেগুলির মিষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
অনেকে মজা করে তরমুজকে নারী-পুরুষ— দু’ভাগে ভাগ করেন। গোলগুলিকে বলা হয় নারী তরমুজ। আর পুরুষগুলি লম্বাটে। এর মধ্যে নারী তরমুজ বেশি মিষ্টি হয়, আর পুরুষগুলি একটু পানসে।

কেনার সময়ে তরমুজের গায়ে টোকা দিয়ে দেখুন। ভারি আওয়াজ হলে, সেটি রসালো ও পাকা তরমুজ। না হলে তাতে জল বেশি।

রসে ভরা মিষ্টি তরমুজ হবে ভারী। হাতে নিয়ে যদি তরমুজটি হালকা বা ফাঁপা মনে হয়, তাহলে সেটি না কেনাই ভালো।

তরমুজের যে অংশ দীর্ঘদিন মাটির সঙ্গে লেগে থাকে, সেই অংশ হলুদ হয়ে যায়। তরমুজ কেনার আগে দেখে নিন, তাতে হলদে দাগ আছে কি না। বড় হলুদ দাগ থাকা মানে তা পেকে যাওয়ার পর জমি থেকে ওঠানো হয়েছে। সাদা দাগ মানে তরমুজ কাঁচা অবস্থায় জমি থেকে উঠিয়ে আনা হয়েছে।

একদিক বড় অন্যদিক ছোট— এমন তরমুজ কিনবেন না। অনেক সময়ে জলের অভাবে তরমুজের এমন আকার হয়। এসব তরমুজে রস বেশি হয় না।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published.