ডব্লিউএইচও’র বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের আওতায় ১ কোটি ৯ লাখ করোনা টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দরিদ্র এবং মধ্যমআয়ের দেশগুলোকে বিনামূল্যে টিকা সরবরাহ করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নেতৃত্বে বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের আওতায় এক কোটি ৯ লাখ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ।

আগামী জুন মাসের আগে এ টিকা পাবে বাংলাদেশ। কোভ্যাক্সের আওতায় বিশ্বজুড়ে বিনামূল্যে টিকা সরবরাহের একটি পরিকল্পনা মঙ্গলবার প্রকাশ করা হয়েছে।

কোভ্যাক্স প্রথম দফায় অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও অক্সফোর্ডের ২৩ কোটি সাত লাখ ডোজ টিকা সরবরাহ করবে। ফাইজার ও বায়োএনটেকের ১২ লাখ ডোজ টিকাও এর মধ্যে থাকবে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, জুনের আগে সবচেয়ে বেশি টিকা যে দেশগুলো পাবে, তার মধ্যে বাংলাদেশ আছে ৪ নম্বরে। এ ছাড়া অন্য দেশগুলো হলো— নাইজেরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান ও ব্রাজিল। আর আগামী মে মাসের শেষ নাগাদ বিশ্বের ১৪২ দেশে ২৩ কোটি ৮২ লাখ ডোজ টিকা সরবরাহ করা হবে।

কোভ্যাক্সের আওতায় প্রথম টিকা পেয়েছে আফ্রিকার দেশ ঘানা। কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে ১৯৮ দেশ অংশ নিয়েছে। তবে সব দেশই প্রথম দফায় টিকা সরবরাহের আওতায় আসছে না।

গরিব দেশগুলো ধনীদের চেয়ে টিকাদানে অনেকা পিছিয়ে রয়েছে। টিকা মজুদ করে রাখার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস গত সোমবার ধনী দেশগুলোর সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বের সব দুর্দশাগ্রস্ত মানুষকে সুরক্ষা দিতে চাই।’

কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় জুনের আগে বাংলাদেশ পাবে এক কোটি ৯ লাখ আট হাজার টিকা। এ ছাড়া বেশি টিকা পেতে যাওয়া অপর দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তান এক কোটি ৪৬ লাখ ৪০ হাজার, নাইজেরিয়া এক কোটি ৩৬ লাখ ৫৬ হাজার, ইন্দোনেশিয়া এক কোটি ১৭ লাখ ৪ হাজার ৮০০ একং ব্রাজিল ৯১ লাখ ২২ হাজার ৪০০ টিকা পাবে।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *