জাপার প্রার্থী হয়ে বাদলের আসনে লড়তে চান জিয়াউদ্দিন বাবলু।পেতে চান মহাজোটের সমর্থন।

মোঃ রবিউল হোসেন/চট্টগ্রামঃ

মঈন উদ্দিন খান বাদলের মৃত্যুের পর শূন্য আসনে
চট্টগ্রাম-৮ উপনির্বাচনে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় পার্টি। এই নির্বাচনে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে জাতীয় পার্টির প্রাথী হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। শুনা যাচ্ছে জাপার প্রার্থী হয়ে বাদলের আসনে লড়তে পেতে চান মহাজোটের সমর্থন। ঢাকার পার্টি অফিসে আজ রোববার (১ ডিসেস্বর) বিকেলে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্যদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে জাপার সভাপতি গোলাম মোহাম্মদ কাদেরসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আগামী ১৩ জানুয়ারি ইভিএমে ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন। গত তিন সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের শরিক মইন উদ্দীন খান বাদল নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে বিজয়ী হন।

এ প্রসঙ্গে জিয়াউদ্দীন আহমেদ বাবলুর অভিমত- ‘আমি গত নির্বাচনে রানিং আসন কোতোয়ালী ছেড়ে দিয়েছি মহাজোট নেত্রীর সিদ্ধান্তে। এবার চট্টগ্রাম ৮ আসনের উপ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে আমাকে প্রার্থী মনোনীত করা হয়েছে। আমি নির্বাচন করব।’
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা এখনও যেহেতু জোটে আছি। জোটগত নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। আশা করি মহাজোটগতভাবে এ আসন জাপাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। সেটা জোটের বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হবে।’

এদিকে উপনির্বাচনে মনোয়ন দৌঁড়ে অনেকটাই অপ্রতিরোধ্য দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন আহমেদ। তিনি এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে এবার নৌকার টিকিট পেতে যাচ্ছেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। তবে মহাজোটগতভাবে প্রার্থীর প্রশ্ন আসলে তখন কপাল পুড়তে পারে মোছলেম উদ্দীনের। তখন নৌকার সমর্থন যেতে পারে লাঙ্গলের দিকে। এছাড়াও এই উপনির্বাচনে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, প্রয়াত এমপি মইন উদ্দিন খান বাদলের স্ত্রী সেলিনা খান বাদলসহ অনেকেই আলোচনায় আছেন। মইন উদ্দীন খান বাদল গত ৭ নভেম্বর ভারতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করার আগ পর্যন্ত ২০০৮ সাল থেকে নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদে ২৮৫/চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করেন। জাপার প্রার্থী হিসেবে জিয়াউদ্দিন বাবলুর পক্ষে যদি মহাজোট সমর্থন দেয় তাহলে বোয়ালখালী চাঁদগাঁও আসনের জনসাধারণ এটি প্রতিহত করবে বলে জানা গেছে। তারা চায় বোয়ালখালীর সন্তান এলাকার এমপি হলল মানুষের জন্য সেবার হাত বাড়িয়ে দেবে। অন্য কোন এলাকার সন্তান এলাকায় উড়ে এসে জুড়ে বসলে তা বোয়ালখালী মানুষ মেনে নেবে না বলে ঐ এলাকার জনসাধারণ এ মন্তব্য করেন।৷ তাং-০১/১২/২০১৯ইং

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *