জননেতা এম.এ.মান্নানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত।

চট্টগ্রাম- ২১ সেপ্টম্বর ২০২০খ্রিঃ
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু’র স্নেহধন্য, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বি.এল.এফ’র পূর্বাঞ্চলীয় জোনের উপ-অধিনায়ক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, সাবেক শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী জননেতা এম.এ.মান্নানের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে মসজিদে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এম.এ মান্নানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোশেনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

এম.এ. মান্নানের কর্মময় জীবনের স্মৃতিচারণ করে প্রশাসক বলেন, জননেতা এম.এ. মান্নান আদর্শ ও ত্যাগের প্রতীক। তিনি আজীবন সত্যের সন্ধানী ও পরোপকারী ছিলেন। চট্টল দরদী, কর্মবান্ধব-আপোষহীন, নির্লোভ এ মানুষটি ছিলেন কিংবদন্তিতুল্য জননেতা। বাষট্টি’র শিক্ষা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যত্থানসহ সত্তরের নির্বাচন, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধসহ এ দেশের সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনে তার ভূমিকা ছিল অন্যন। তিনি চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগ নেতৃত্বে অন্যতম দিকনির্দেশনাকারী হিসেবে যে ভূমিকা পালন করে গেছেন তা সবার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। সর্বোপরি সচ্ছ-পরিস্কার রাজনীতির ক্ষেত্রে এবং ত্যাগী নেতা হিসেবে তিনি গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে সবার কাছে অনুকরণীয় ছিলেন। অন্যদিকে জহুর আহমদ চৌধুরী ও এম.এ আজিজ, এম. এ হান্নান এর পর চট্টগ্রামের রাজনীতিতে তিনি উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন।

তার পথ অনুসরণ করে দেশ সেবাই এগিয়ে এলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।
এতে আরো উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা শফি বাঙালি, ১৫ নং বাগমনিরাম ওর্য়াড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক কাউন্সিলর মোঃ গিয়াস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল বশীর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান বাচ্চু, শাহাজান রতন, সাইফুল ইসলাম বাবু, রেলওয়ে শ্রমিক নেতা সিরাজুল ইসলাম, আবদুল মালেক, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা দিদারুল আলম, কামরুল ইসলামসহ ওর্য়াড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাএলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *