চবি’র প্রথম নারী ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ১৮তম উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। শনিবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ দায়িত্ব দেয়া হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে তিনি প্রথম নারী ভিসি এবং দেশের ইতিহাসে তৃতীয় নারী ভিসি।আদেশে বলা হয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কাজের ধারাবাহিকতার স্বার্থে ভাইস চ্যান্সেলর পদে নিয়োগ পেলেন। এর আগে তিনি ভারপ্রাপ্ত উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার বলেন,শনিবার বিকেল চারটায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা অাফরোজ স্বাক্ষরিত এক ফ্যাক্স বার্তায় ভারপ্রাপ্ত ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতারকে ভিসির দায়িত্বে আদেশ দেওয়া হয়।


বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সার্চ কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য ড. শিরীণ আখতার। তিনি ১৯৯৬ সাল থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ (হলুদ দল) এর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার বাবা মৃত আফসার কামাল চৌধুরী ছিলেন কক্সবাজার আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।


তিনি কক্সবাজার সরকারি গার্লস স্কুল থেকে ১৯৭৩ সালে এসএসসি, ১৯৭৫ সালে চট্টগ্রাম সরকারি গার্লস কলেজ থেকে এইচএসসি, ১৯৭৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে বি এ (অনার্স), ১৯৮১ সালে একই বিভাগ থেকে এম এ এবং ১৯৯১ সালে ‘বাংলাদেশের তিনজন ঔপন্যাসিক শওকত ওসমান, ওয়ালিউল্লাহ, আবু ইসহাক’ অভিসন্দর্ভের ওপর ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।তিনি চট্টগ্রাম এনায়েত বাজার মহিলা কলেজে ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৫ পর্যন্ত প্রভাষক পদে কর্মরত ছিলেন। ১৯৯৬ সালের পহেলা জানুয়ারি তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে প্রভাষক পদে যোগদান করেন।শিরীণ আখতার ১৯৯৭ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি সহকারী অধ্যাপক, ২০০২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সহযোগী অধ্যাপক এবং ২০০৬ সালের ২৫ জানুয়ারি অধ্যাপক পদে পদোন্নতি লাভ করেন। ২০১৬ সালের ২৮ মার্চ তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান।তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়া উপাচার্যের দায়িত্ব পাওয়া অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার জানান, আমি ভিসি হিসেবে দায়িত্ব পেলাম। আল্লাহর কাছে অশেষ শুকরিয়া। সবাইকে নিয়েই আমার এই যাত্রা শুরু করতে চাই। এ সময় তিনি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

স্বাধীন কন্ঠ মোঃ রবিউল হোসেন।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *