করোনা ছোবল এ প্রথমে বাবা তারপর ঘরের আরো ৪ সদস্য

চট্রগ্রামের পাহাড়তলীতে করোনা ভাইরাসে প্রথমে ৫০ বছর বয়সি বাবা এরপর পরিবারের আরও চার সদস্যের করোনা সংক্রমণ

চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন সিডিএ মার্কেট এলাকার দুই ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল ১১ এপ্রিল (শনিবার)। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত ৫০ বছর বয়স্ক এক ব্যক্তির পরিবারের আরও ৪ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হলেন। পেশায় ব্যবসায়ী ওই ব্যক্তির স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল)। তবে আরেক মেয়ের টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে, তার বয়স সাড়ে ৩ বছর।

বিষযটি নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের উপকমিশনার (বিশেষ শাখা) আব্দুল ওয়ারিশ। তিনি চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) পাহাড়তলী থানাধীন যে ৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে তারা সবাই ১১ এপ্রিল শনাক্ত হওয়া ৫০ বছর বয়স্ক ব্যক্তির পরিবারের সদস্য।

পাহাড়তলী থানার সেকেন্ড অফিসার রানা প্রতাপ জানান, ‘ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রীর বয়স ৪০, তিনি গৃহিণী। দুই ছেলের একজনের বয়স ২৩ এবং অপরজনের বয়স ২২। তারা দুইজনই ছাত্র। তাদের একজন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। আক্রান্ত আরেকজন ওই ব্যবসায়ীর কন্যা। তার বয়স ১৫ বছর, সেও শিক্ষার্থী।’

নতুন এই চারজনকে নগরীর জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয়েছে মঙ্গলবার রাতেই। সাড়ে ৩ বছরের শিশুটিকে তার মামা এসে নিয়ে গেছেন বলেও জানান রানা প্রতাপ।

একই পরিবারে এক সঙ্গে ৫ জন করোনাভাইরাসে শনাক্ত হওয়ার পর যারা গত কয়েকদিনে তাদের সাথে মেলামেশা করেছেন তাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। এই পরিবারের সদস্যদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তি এবং অপর ৬ জনের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের তালিকা করে তাদেরও হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হবে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি।

এদিকে একইদিন করোনা শনাক্ত হয় বোয়ালখালী উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়নের এক বাসিন্দার শরীরে। তিনি শ্বাসকষ্ট নিয়ে রোববার নগরীর ম্যাক্স হসপিটালে ভর্তি হয়ে সোমবার সকালে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়িতে ফিরে যান। রাতেই তাকে জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশনে আনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *