করোনাযুদ্ধে না ফেরার দেশে ২৭ করোনা চিকিৎসক সহ আর অনেকে

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে এপর্যন্ত ২৭ চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জন নারী চিকিৎসকও রয়েছেন। এর বাইরে করোনা উপসর্গে আরও ৫ চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দেশের কয়েক হাজার চিকিৎসক। অভিযোগ উঠেছে করোনা সংকটের মাঝে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়া এসব যোদ্ধাদের কেউ কেউ শেষ মুহূর্তে যথাযত চিকিৎসা পাননি। কয়েক হাসপাতাল ঘুরলেও তাদের ভর্তিই করা হয়নি বলে অভিযোগ পরিবারের সদস্যদের।

করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসকদের মধ্যে সর্বপ্রথম মারা যান সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিন। ১৫ এপ্রিল ভোর সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। গরীবের ডাক্তার হিসেবে পরিচিত ডা. মঈন শেষ মুহূর্তে এয়ার এম্বুলেন্স চেয়েও পাননি বলে অভিযোগ রয়েছে।

গত ১২ মে মারা যান প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আবুল মোকারিম মো. মহসিন উদ্দিন। রাজধানীর ইবনে সিনা হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের প্রধান ছিলেন তিনি। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশে এ নিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণে ২৭ জন চিকিৎসক প্রাণ হারালেন। এ ছাড়া করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরো পাঁচজন চিকিৎসক। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজারের উপর চিকিৎসক।

এইভবে চিকিৎসার অভাবে আর অবহেলা আর অনেক চিকিৎসক চিকিৎসা ছাড়াই মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করে চিকিৎসকদের সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপনসিবিলিটি।

Tags:

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *