করোনাকালে নানাবিধ সহযোগিতা কার্যক্রম চালাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীরা

মিজানুর রহমান সুমন

করোনার কঠিন সময়টিতে নানাবিধ সহযোগিতা কার্যক্রম নিয়ে এগিয়ে এসেছেন প্রবাসীরা৷ গত দুই মাসের বেশি সময় ধরে চলতে থাকা লকডাউনে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে বেশ কয়েকটি সংগঠন৷



মানবিক সাহায্য নিয়ে এগিয়ে এসেছে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া ফ্যাশন এসোসিয়েশন৷ সংগঠনটির পক্ষে তাম্মি পারভেজ সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করেন৷ গত ২৬ আগস্ট তারা কমিউনিটির পিছিয়ে পড়া লোকজনের সহায়তায় এগিয়ে আসেন৷ তাদের সহায়তা কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে জানা যায়৷

করোনার শুরু থেকেই অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন রাসেল রহমান৷ তাদের সংগঠন অল স্টেট ফিনান্স গ্রুপ লাকেম্বায় ত্রান কার্যক্রম পরিচালনা করেন৷ তাদেরকে সহায়তা করেন সংগঠনটির সাথে সম্পৃক্তরা৷ পাশাপাশি সহায়তায় ছিলেন সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মাদ জামান৷

সুলতানা আক্তার,এনামুল হক,রানা শরিফ ও আবদুল্লাহ ইউসুফ শামীম এর উদ্যোগে বাংলাদেশ কমিউনিটি ফোরাম ও গুড সিটিজেন্স ওয়ার্ক এর ব্যানারে শুরু হওয়া লআকেম্বায় একটি সহায়তা কার্যক্রমে প্রতি সপ্তাহে আলাদা আলাদা সংগঠন স্পন্সর করে আসছে৷ সেখানে সহায়তা করেছে জাতীয়তাবাদী দলের এশিয়া প্যাসিফিক এলাকার স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তি উদযাপন কমিটি৷ বিএনপি অস্ট্রেলিয়ার সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান৷

যুবলীগ নেতা অপু সারোয়ার,সংগঠন “আমরা বাংলাদেশী৷ “



সেখানে আরও সহযোগিতা করছেন বাসার খান, মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, জিয়া মোল্লা, সাইফুর রহমান অপু, রাছেল ইসলাম, ড: ফজলে রাব্বি, ইভান, বদরুদ্দোজা জনি, ইয়াসিন, শেখ ইসলাম সহ অনেকে৷

এছাড়া বাংলাদেশ মেডিকেল সোসাইটি অব এন এস ডাব্লিউ সহায়তা কার্যক্রম চালায়৷ সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মাদ জামান ও লাইটহাউজ কমিউনিটি সাপোর্ট এই সহায়তা কার্যক্রমে পাশে ছিলেন৷

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিডনি, অস্ট্রেলিয়া দাতব্য সংস্থা ‘লাইটহাউজ’কে সিডনিস্থ ল্যাকেম্বায় অনুদান প্রদান করে।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়াটসনের সম্মানিত ফেডারেল মেম্বার টনি বার্ক এমপি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিডনি, অস্ট্রেলিয়া নেতৃবৃন্দ।

কমিউনিটি ওয়ার্কার পুরবী পারমিতা বোস ও তাদের সংগঠন ” আমাদের কথা” ত্রান কার্যক্রম পরিচালনা করে৷ অন্তত দুইটি আলাদা স্পটে তারা সহায়তা করেছে৷ সামনেও সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে জানা যায়৷

সহায়তা করেছে লাইটহাউজ কমিউনিটি সাপোর্ট৷ মাকসুদা ক্যাটারিং, রসমেলা সুইটস৷ এই কার্যক্রমেও তাদের পাশে ছিলেন সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মাদ জামান৷

মানবিক সহায়তা করেছে জিয়া ফোরাম অস্ট্রেলিয়া৷ তারা গত বছরের মত এই বছরেও সহায়তা অব্যাহত রেখেছে৷

মাল্টিকালচারাল ইউথ এসোসিয়েশন অব অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আওয়ামী লীগ নেতা দিদার হোসেন ফ্যামিলি গিফট বক্স পৌছে দেন৷ দিদার হোসেন অনেক ফ্যামিলির সাথে যোগাযোগ করে অসুবিধায় থাকা ফ্যামিলিগুলোর পাশে দাঁড়ানোর অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন৷

এছাড়াও বেশ কয়েকটি সংগঠন সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করেছে৷ যাদের বিস্তারিত স্বাধীনকন্ঠের হাতে আসেনি৷ অনেকেই নীরবে নিভৃতে সহযোগিতার কাজটি চালিয়ে যাচ্ছেন৷

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *