একশ প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার দিলেন হুইপ

জাতীয় সংসদের হুইপ ও চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী বিভিন্ন বয়সী একশ শারীরিক প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার উপহার দিয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে হুইপ ব্যতিক্রমী ও মানবিক এই কাজটি করেছেন। এসব হুইল চেয়ার পেয়ে স্কুল শিক্ষার্থী, শিশু, বয়োবৃদ্ধি প্রতিবন্ধীরা খুশিতে আত্মহারা। চমক সৃষ্টিকরা অনুষ্টানে হুইল চেয়ার পেয়ে দৈনন্দিন কঠিন জীবন যাত্রায় এই হুইল চেয়ার কিছুটা হলেও স্বাচ্ছন্দ আনবে বলে তারা প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছে। এ ছাড়া পটিয়ার ২২৭টি স্কুল কলেজে চালু করা হয়ে মুজিব কর্ণার। যেখানে শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবে। জাতির পিতার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের ভিডিও প্রদর্শনী আর শেখ মুজিবুর রহমানের নীতি আদর্শ সম্পর্কে জানতে পারবে।
সকালে জাতীয় সংগীত শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে হুইপ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এর পর পরেই বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদান করা হয়। পরে একশ কবুতর ও বেশকিছু বেলুন উড়িয়ে মুজিববর্ষ পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ ছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। করোনা ভাইরাসের বিষয়ে সরকার যথেষ্ট সচেতন। মুজিববর্ষ পটিয়াতে বৃহৎ আকারে আয়োজন করলেও সরকারের নিদের্শনা মোতাবেক স্বল্প পরিসরে করা হয়েছে। তবে আগের দিন রাত (সোমবার) থেকে সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আলোকসজ্জা করে পটিয়াকে আলোকিত করেছে। শিশুদের নিয়ে ছিল ছন্দ, কবিতা ও গানে গানে ‘বঙ্গবন্ধু’। দুপুরে মুক্তিযোদ্ধারা ‘বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র ইতিহাস তরুণ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরেন। রাতে রয়েছে কেক কাটা ও আতশবাজি উৎসব। এছাড়া বিভিন্ন পেশাজীবিদের নিয়ে সীমিত সমাবেশ অনুষ্টিত হয়।
মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে হুইপ সামশুল হক চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ পরিবারের সকলেই সমাজের দরিদ্র এবং প্রতিবন্ধীদের ভালোবাসেন। তাদের কল্যাণে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এসব প্রকল্পে উৎসাহিত হয়ে তিনিও নিজস্ব উদ্যোগে প্রাথমিকভাবে সমাজে বঞ্ছিত ১শ জনের পাশে দাঁড়িয়েছেন। বছর ব্যাপী আরো অনেক অনুষ্ঠানে এই ধরনের মানবিক পরিকল্পনা নিয়ে তিনি দু:স্থ, সমাজের পিছিয়ে পড়া এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়াবেন বলে ঘোষনা করেন। আগমী প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রানিত করতে তার ব্যাপক পরিকল্পনার কথা ঘোষনা করেন।


অনুষ্ঠানে ছিলেন-পটিয়া মুজিববর্ষ উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, উদযাপন পরিষদের কো-চেয়ারম্যান ও পটিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, পটিয়া পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, সাবেক সংসদ সদস্য চেমন আরা তৈয়ব, পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহানা জাহান উপমা, পটিয়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার শামসুদ্দিন আহমদ, পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন, সহকারী কমিশনার (ভুমি) ইনামুল হাসান, পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আ.ক.ম. শামসুজ্জামান চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান দেবব্রত দাশ দেবু, পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি রাশেদ মনোয়ার, হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর পুত্র নাজমুল করিম চৌধুরী শারুন, পটিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু, দক্ষিণ জেলা আ’লীগ নেতা বিজন চক্রবর্ত্তী, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সভাপতি আ.ম.ম. টিপু সুলতান চৌধুরী, হুইপের এপিএস হাবিবুল হক চৌধুরী, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম, চেয়ারম্যান ইনজামুল হক জসিম, চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম, চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ছৈয়দ, চেয়ারম্যান ইব্রাহিম বাচ্চু, পটিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলমগীর আলম, সাধারণ সম্পাদক এমএনএ নাছির, পটিয়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক হাসান উল্লাহ, যুগ্ম আহবায়ক ইমরান উদ্দিন বশির, মাষ্টার লিটন নাথ।
পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ জানিয়েছেন, সরকারের নির্দেশনা মেনে পটিয়াতে স্বল্প পরিসরে মুজিবর্ষ পালন করা হয়েছে। তবে ব্যতিক্রমী ও মানবিক কাজ করেছেন হুইপ সামশুল হক চৌধুরী এমপি। তিনি পটিয়া পৌরসভা ও উপজেলার ১৭ ইউনিয়নের ১শ দরিদ্র প্রতিবন্ধী মানুষের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করেন। এই ধরনের মানবিক কাজ সমাজ দরকার। এ ধরণের ব্যতিক্রমী অনুষ্টানের মাধ্যমে মুজিব শতবর্ষ শুরু হওয়ায় ব্যাপক সাড়া পড়েছে।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *