একজন মানবিক মেয়র!

আইসিইউ বললেই ভয় লাগে। আইসিইউ কে বলা হয় (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) ইংরেজিতে ইনসেন্টিভ কেয়ার ইউনিট। কোন অসুস্থ মানুষের শেষ অবস্থা থেকে বাঁচাতে আইসিইউ শেষ আশার স্থল। জনসাধারণের কষ্টের কথা চিন্তা করে মানবিকতা দেখালেন মেয়র। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন নিজেই প্রদান করলেন আইসিইউ বেড। আজ শনিবার (৩ আগস্ট) থেকে রোগী পরিচর্যায় সংযুক্ত করা হয়েছে বেডটি। এরই মধ্যে একজন মুমূর্ষু রোগীকে ভর্তি করা হয়েছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ,জ,ম নাছির উদ্দীন বহু প্রশংসিত হয়েছে মানবিক কর্মকান্ডের জন্য। প্রতিমাসের বেতনের সবটুকুই তিনি দান করেন প্রতিবন্ধীদের সহায়তা ও ছিন্নমূল শিশুদের জন্য।কর্পোরেশনের বোনাসের টাকা তিনি অসহায় দুস্থ গরিব’দের দান করেন। সিটি কর্পোরেশন থেকে কোনো সুযোগ-সুবিধা তিনি নেন না।জানা যায় মেয়র অনেক গরীব অসহায় মেয়েদের বিয়ের খরচ যুগিয়েছেন। প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ার প্রদান করেছেন। রমজান মাসে বিভিন্ন ইফতারি সহায়তা দিয়েছেন নিজের পকেট থেকে। তিনি সব সময় মানবিক কর্মকাণ্ড করে যেতে চান বলে জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে। তবে কর্পোরেশনের টাকায় নয় নিজের টাকায় তিনি সহায়তা করে যেতে চান। চট্টগ্রাম মেডিকেল হসপিটালে আইসিইউ বেড প্রদান করে আরেকটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। এই বিরল দৃষ্টান্ত খুশি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ,ডাক্তার ও রোগীর আত্মীয় স্বজন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালে আইসিইউ প্রদান করা প্রসঙ্গে মেয়র আজম নাছির উদ্দিন বলেন- মুমূর্ষু রোগীদের জন্য আইসিইউ কতটা কার্যকরী তা আমি উপলব্ধি করেছি। মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে প্রদান করা হয়েছে। প্রদান করতে পেরে আমি নিজেকে গর্বিত মনে করছি। সবার উচিত মানুষের জন্য কিছু করা।আমি জনগনের সেবায় আছি জনগনের সেবায় থাকবো। সারাজীবন জনগনের সেবায় থাকতে চাই। এ প্রসঙ্গে চমেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহসেন উদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন- চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৪টি আইসিইউ বেড ছিল। এরমধ্যে একটি বেড নষ্ট হয়ে যাওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বেকায়দায় পড়ে। বিষয়টি মেয়র মহোদয়কে অবহিত হওয়ার পর নিজ থেকেই বেড দেওয়ার ঘোষণা দেন। সপ্তাহখানেক আগে বেডটি চমেক হাসপাতালে এসে পৌঁছায়।মেয়রের মতো সমাজের বিত্তবানদের উচিত মানুষের সার্বিক সহযোগিতায় এগিয়ে আসা। জানা যায় দেশের বাইরে থেকে আমদানি করা এই আধুনিক বেডটি প্রায় ৭ লাখ টাকায় কেনা হয়েছে।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *