আজ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের শুভ প্রবারণা পূর্নিমা।

বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মতে, এ শুভ তিথিতে ভগবান বুদ্ধ দেবলোক হতে সাংকশ্য নগরে অবতরণ করেছিলেন। প্রবারণা শব্দের অর্থ আশার তৃপ্তি, অভিলাষ পূরণ, ধ্যান বা শিক্ষা সমাপ্তি বোঝায়। আত্মশুদ্ধি বা আত্মসমালোচনাও বলে। এটি বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসব।

সব পূর্ণিমা তিথি কোনো না কোনো কারণে বৌদ্ধদের জন্য শুভময় দিন। ভিক্ষুদের ত্রৈমাসিক বর্ষাব্রত সম্পন্ন হয় এই দিনে। এ কারণে আশ্বিনী পূর্ণিমা বা প্রবারণা পূর্ণিমা বৌদ্ধদের পরম পবিত্র দিন। আগামী মাসব্যাপী প্রতিটি বৌদ্ধ গ্রামে পালাক্রমে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় শুরু হবে দানশ্রেষ্ঠ ‘কঠিনচীবর দান’।আজকের দিনের কার্যসূচি শুরু হবে ভোরে বিশ্বশান্তি কামনায় বিশেষ সূত্রপাঠের মধ্য দিয়ে।

প্রতিটি বৌদ্ধবিহারে এ নিয়ম পালিত হবে। সকাল ৭টায় বিহার প্রাঙ্গণে উত্তোলন করা হবে জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা। সকাল ৯টা-১০টার মধ্যে শুরু হবে বুদ্ধ পূজা, উপাসক-উপাসিকা, দায়ক-দায়িকারা পঞ্চশীলে প্রতিষ্ঠিত হয়ে কেউ কেউ অষ্টশীল গ্রহণ করবেন। দিনের প্রথমভাগের কার্যসূচি শেষ হবে বেলা ১২টায়। সন্ধ্যায় আলো-ঝলমলে বাতি দ্বারা বিহারে করা হবে আলোকসজ্জা। প্রদীপ পূজার পাশাপাশি সকালের ন্যায় প্রার্থনা সভাও অনুষ্ঠিত হবে। তবে করোনাভাইরাস মহামারীর জন্য এবারের আয়োজন সম্পন্ন হবে সীমিত পরিসরে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *