অস্ট্রেলিয়া নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে আইনজীবীর ৭৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ-এর অভিযোগ

অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী উম্মে ফাতেমা রোজীর (৩৫) এর বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যক্তিকে অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগ উঠেছে।

রোজী নিজেকে পরিচয় দেন অস্ট্রেলিয়া ইমিগ্রেশন কনস্যুলার জেনারেল হিসেবে। অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশনমন্ত্রী এলেক্স হাউকির সঙ্গে তার সুসম্পর্ক রয়েছে বলেও প্রচার করেন।

মাঝে মধ্যে দেশে এসে টার্গেট করে কয়েকটি পরিবারের সঙ্গে গড়ে তোলেন সখ্য। এরপর গড়ে ওঠে পারিবারিক সম্পর্ক। সেই সম্পর্কের জেরে বাংলাদেশীদের কম খরচে পরিবারসহ অস্ট্রেলিয়ায় নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখান তিনি। দীর্ঘদিন ধরে অস্ট্রেলিয়ান রিলেটিভ স্পনসর মাইগ্রেশন (৮৫৫) পার্মানেন্ট রেসিডেন্ট জাল ভিসা প্রস্তুত করে বাংলাদেশী নিরীহ মানুষকে অস্ট্রেলিয়ায় পাঠানোর কথা বলে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন প্রবাসী উম্মে ফাতেমা রোজী।

এ পর্যন্ত সাতজনের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার তথ্য পেয়েছে সিআইডি। তাদের মধ্যে একজন সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবী এম এ বি এম খায়রুল ইসলাম স্ত্রী সন্তানসহ পরিবারের আট সদস্য নিয়ে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আশায় দুটি ব্যাংক এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ৭৫ লাখ ৩৮ হাজার টাকা রোজীর এ্যাকাউন্টে দেন। এরপর কাগজপত্র ও ভিসা হাতে পেয়ে সেগুলো যাচাই-বাছাই করতে গিয়ে দেখতে পান সবই ভুয়া ও জাল।

এরপর খিলগাঁও থানায় তিনি রোজীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার তদন্ত করতে গিয়ে রোজীর সহযোগী চক্রের দুজনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি। গ্রেপ্তার দুজন হলেন- মো. সাইমুন ইসলাম ও আশফাকুজ্জামান খন্দকার।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *