অস্ট্রেলিয়ায় আবারও ভারী বৃষ্টিপাত-বন্যা! নিউ সাউথ ওয়েলসে জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা

অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব এলাকায় প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। চলতি মাসে দ্বিতীয়বারের মতো ওই এলাকায় বন্যা দেখা দেওয়ায় হাজার হাজার বন্যাদুর্গতকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টা আবহাওয়ার অস্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ থাকবে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ মঙ্গলবার কুইন্সল্যান্ডে বন্যার পানিতে আটকে পড়া একটি গাড়ি থেকে একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যু হলো দুইজনের।

অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের উত্তরাঞ্চলে এবং কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলের বেশ কয়েকটি শহরে এ মাসের শুরুর দিকে ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছিল। কয়েক শ বাড়ি, খামার, গবাদিপশু ভেসে গেছে সেই বন্যায়। প্রাণহানি ঘটেছে অন্তত ২১ জনের।

সেই বন্যার ধকল পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠার আগেই আবারও বন্যার কবলে পড়ল এলাকাটি। নিউ সাউথ ওয়েলসের জরুরি সেবাবিষয়ক মন্ত্রী স্টেফানি কোক বলেছেন, ‘ওই সময় ডুবে যাওয়া অনেক ভবন এবার আবার বন্যার কবলে পড়বে। আমরা এখন যার মুখোমুখি হচ্ছি, তা আসলে খুবই দুর্ভাগ্যজনক বাস্তবতা।’

এদিকে আজ মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া অফিস সতর্ক করে বলেছে, নিউ সাউথ ওয়েলসের উত্তর উপকূলে ৫০০ কিলোমিটারের বেশি এলাকাজুড়ে প্রবল বন্যা ও জলোচ্ছ্বাস দেখা দিতে পারে। আগামী ছয় ঘণ্টার মধ্যে কিছু কিছু এলাকায় ৩০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে।

নিউ সাউথ ওয়েলস অঞ্চলের নদীর পানি ক্রমশ বাড়ছে। এ অবস্থায় ওই এলাকার লিজমোর শহরের বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কয়েক দিন আগের বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত শহরের একটি লিজমোর।

Tags:

এ বিভাগের আরো কিছু সংবাদ

মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *